অনন্তের সিনেমা দেখার ঘোষণা মিথ্যাচার :ববিতা

নিজস্ব প্রতিবেদকনিজস্ব প্রতিবেদক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  11:50 PM, 18 July 2022

বাংলাদেশ ও ইরানের যৌথ প্রযোজনার সিনেমা হলো ‘দিন-দ্য ডে’। অনন্ত জলিল ও বর্ষা অভিনীত বহুল প্রতীক্ষিত এই সিনেমা গেল বছর মুক্তির কথা থাকলেও মুক্তি পায়নি শেষ পর্যন্ত। অবশেষে ঈদ উল আজহায় প্রেক্ষাগৃহে চলছে সিনেমাটি। সিনেমাটির প্রচারের অংশ হিসেবে বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহ ঘুরে বেড়াচ্ছেন অনন্ত-বর্ষা দম্পতি। তবে মুক্তির পরেই নানা তর্ক-বিতর্কে পড়েছে ‘দিন দ্য ডে’ সিনেমাটি। এবার সিনেমা প্রচারণায় নতুন করে হলে সিনেমা দেখতে ৭৪ শিল্পীকে দাওয়াত জানিয়েছেন অনন্ত।

সোমবার (১৮ জুলাই) যমুনা ব্লকবাস্টারে সন্ধ্যা ৭টার শো দেখবেন চলচ্চিত্রটির ৭৪ শিল্পী। এক ভিডিও বার্তায় অনন্ত বলেন, ‘এবার শুধু আমি বা বর্ষা নই, ‘দিন দ্য ডে’ দেখবেন আমাদের চলচ্চিত্রের ৭৪ জন আর্টিস্ট। আমরা একসঙ্গে সিনেমাটি দেখব। আমন্ত্রণ জানাচ্ছি সাংবাদিক ভাইয়েদেরও।’ এছাড়া অনন্ত পোস্টও দিয়েছেন, যেখানে তিনি অনেক সিনিয়র শিল্পীর নামও ঘোষণা করেছেন।

অনেক তারকার নাম লিখলেও সেই তালিকায় রয়েছেন কিংবদন্তী অভিনেত্রী ববিতাও। যদিও ববিতা একটি সংবাদমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাতকারে অনন্তের দেয়া ঘোষণা সম্পর্কে কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন।

ববিতা বলেন, আমাদের তিন বোনের কারও সঙ্গে জলিল সাহেবের কথা হয়নি। কিন্তু আমাদের সঙ্গে কথা না বলে ফেসবুকে এভাবে নাম লিখে দেওয়ার তো কোনো মানে হয় না। এ ধরনের মিথ্যাচার মোটেও ভালো নয়।

অনন্ত জলিল তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে রোববার লিখেছেন, ‘আগামীকাল ১৮ জুলাই সন্ধ্যা সাতটায় যমুনা ব্লকব্লাস্টারে আমাদের “দিন: দ্য ডে” মুভিটি দেখার জন্য আমাদের সবার প্রিয় ৭৪ শিল্পীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছি। আমাদের কিংবদন্তি চলচ্চিত্র অভিনেতা-অভিনেত্রী সবাই থাকবেন। আমাদের সবার শ্রদ্ধেয় আলমগীর সাহেব, ফারুক সাহেব, সোহেল রানা সাহেব, ইলিয়াস কাঞ্চন সাহেব, উজ্জ্বল সাহেব, রুবেল ভাই, ফেরদৌস ভাই, রিয়াজ ভাই, ববিতা আপা, রোজিনা আপা, সুচরিতা আপা, চম্পা আপা থেকে শুরু করে নতুন প্রজন্মের প্রিয় মুখ সিয়াম আহমেদ, আরিফিন শুভ, বাপ্পি, ইমন, নিরব এবং অন্যান্য সবার হাত ধরে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি অনেক দূর এগিয়ে যাবে বলে আশা করি।
এর আগে অনন্ত জলিল জানিয়েছিলেন, বিশ্বের ৮০টি দেশে একসঙ্গে মুক্তি পাবে ‘দিন-দ্য ডে’। সিনেমাটি মোট ৫টি ভাষায় মুক্তি পাবে বলে জানা গেছে। মধ্য প্রাচ্যের দেশগুলো যেখানে বাংলাদেশিরা কাজ করেন, সেখানে বাংলা ভাষায় মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা চলছে। অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তির ব্যবহারে এ সিনেমায় নিজেই নিজেকে ছাড়িয়ে গেছেন অনন্ত জলিল। তার দাবি, তার এই সিনেমাটি হলিউডের সিনেমার চেয়ে কোনো অংশে কম না।