১৩ জুন তৌহিদী জনতাকে নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় ঘেরাও করবে লেবার পার্টি। ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান

নিজস্ব প্রতিবেদকনিজস্ব প্রতিবেদক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  11:36 PM, 08 June 2022
জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ লেবার পার্টির

বিজেপি মুখপাত্র কর্তৃক রাসুল (সাঃ)কে অবমাননায় মুসলিমসহ বিশ্বের প্রতিটি বিবেকবান মানুষের হৃদয়ে রক্তক্ষরন হচ্ছে মন্তব্য করে লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেছেন, বিজেপির মুখপাত্র নুপুর শর্মা ও বিজেপির দিল্লি মিডিয়া প্রধান নবীন কুমার জিন্দাল কর্তৃক বিশ্ব মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-কে কটূক্তি করে সমগ্র মুসলিম উম্মাহর কলিজায় আঘাত দিয়েছে। আগামী ১২ জুনের মধ্যে ভারতীয় হাইকমিশনারকে তলব করে ব্যাখ্যা না চাইলে ১৩ জুন তৌহিদী জনতাকে নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় ঘেরাও করবে লেবার পার্টি।

তিনি বলেন, কোনো সভ্য জাতি বা নেতা কারো মৌলিক বিশ্বাসের উপর এভাবে আঘাত হানতে পারে না। ইতোপুর্বে ভারতে কুরআনের আয়াত পরিবর্তন চেয়ে করা রীট, মুসলিম বিরোধী আইন, মুসলমানদের হত্যা, মসজিদ ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগসহ মুসলমানদের উপর নিপীড়নমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করেছে বিজেপি। এসব নীতিহীন অপকর্মের প্রতিবাদে ভারতের বিভিন্ন স্থানে সহিংসতার সৃষ্টি হয়েছিল যাতে বহু মানুষ নিহত হয়েছে।

ডাঃ ইরান বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর কটূক্তির এই ঘটনায় পুরো মুসলিম বিশ্বের প্রতিবাদের মুখে রাজনৈতিক পদক্ষেপ হিসেবে বিজেপি উক্ত কটূক্তিকারীদের তাদের দল থেকে বহিষ্কার করে মূলত মানুষের চোখে ধুলো দেওয়ার ব্যর্থ চেষ্টা করেছে। বহিষ্কার কোনো সমাধান নয়। এর পাশাপাশি দ্রুত তাদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। ভারতে রাসূল (সা.)-কে নিয়ে কটূক্তি কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। এটা মূলত: মুসলমানদের বিরুদ্ধে চলা ষড়যন্ত্রের বহিঃপ্রকাশ। বিশ্বের ৩য় বৃহত্তম মুসলিম রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ সরকারকে অবিলম্বে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে তলব করে কটুক্তির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয়ভাবে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাতে হবে এবং জাতীয় সংসদে নিন্দা প্রস্তাব আনতে হবে।

আজ বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ লেবার পার্টির উদ্যোগে ভারতে রাসুল (সাঃ)কে অবমাননার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। ঢাকা দক্ষিন লেবার পার্টির সভাপতি মাওলানা আনোয়ার হোসাইনের সভাপতিত্বে কর্মসুচীতে বক্তব্য রাখেন লেবার পার্টির মহাসচিব লায়ন ফারুক রহমান, মানবাধিকার সংরক্ষন সংস্থার চেয়ারম্যান এড. জহুরা খাতুন জুঁই, বিএনপি নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম চৌধুরী মিলন, সাম্যবাদী দলের সম্পাদক কমরেড নুরুল ইসলাম, নাগরিক পার্টির চেয়ারম্যান আহসানুল্লাহ শামীম, মুসলিম সমাজের চেয়ারম্যান ডাঃ মাসুদ হোসেন, নেজামে ইসলামীর মাওলানা ওবায়দুল হক, বিএনপি নেতা শ্রী রাম শাহ সুমন, লেবার পার্টির যুগ্ম-মহাসচিব হুমাউন কবির, এনডিএম সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুজ্জামান হিরা, লেবার পার্টির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মুফতি তরিকুল ইসলাম সাদী, আর্ন্তজাতিক সম্পাদক খোন্দকার মিরাজুল ইসলাম, যুবমিশন সদস্য সচিব শওকত চৌধুরী ও ছাত্রমিশন সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম।