০৭:২০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হবু স্বামীকে গ্রেফতার করে বাহাবা পেয়ে এবার নিজেই গ্রেফতার জুনমনি!

  • Reporter Name
  • Update Time : ১০:১৫:২৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ জুন ২০২২
  • 50

গ্রেফতার জুনমনি

প্রতারণার অভিযোগে নিজের বাগদত্তাকে গত মাসে গ্রেফতার করে খবরের শিরোনামে উঠে আসেন ভারতের আসামের পুলিশ কর্মকর্তা জুনমনি রাভা। হবু স্বামীর সঙ্গে জালিয়াতিতে যুক্ত থাকার অভিযোগে শনিবার জুনমনিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

জুনমনি ভারতের আসামের নগাঁও জেলার পুলিশের এসআই। তাকে গত দু’দিন ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করছিল পুলিশ। মাজুলি জেলার একটি আদালত তাকে ১৪ দিনের বিচার বিভাগীয় হেফাজতে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। জুনমনিকে মাজুলি জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

খবরে বলা হয়, দুই ঠিকাদারের অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ওই দুই ঠিকাদার পুলিশের কাছে জানান, তারা জুনমনির প্রাক্তন বাগদত্তা রানা পোগাগের সঙ্গে আর্থিক চুক্তি করেছিলেন। জুনমনিই তাদের সঙ্গে রানার যোগাযোগ করিয়ে দিয়েছিলেন। ঠিকাদারদের অভিযোগ, রানা তাদের টাকা নিয়ে জালিয়াতি করেন এবং এই ঘটনায় জুনমনিও সমানভাবে যুক্ত ছিলেন। এরপরই পুলিশ জুনমনিকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে।

প্রসঙ্গত, ওএনজিসিতে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কয়েক জনের সঙ্গে আর্থিক প্রতারণা করার অভিযোগে ৫ মে রানাকে গ্রেফতার করেন জুনমনি। মাজুলিতে থাকার সময়ই জুনমনির সঙ্গে আলাপ ও প্রেম হয়েছিল রানার। রানা নিজেকে ওএনজিসির জনসংযোগ বিভাগের কর্মকর্তা হিসেবে পরিচয় দিয়েছিলেন। গত বছর ৮ অক্টোবরে ধুমধাম করে তাদের বাগদান পর্ব সম্পন্ন হয়। এরপর নগাঁওতে বদলি হয়ে রানার কুকীর্তির কথা জানতে পারেন বলে জুনমনি- এমনটাই দাবি করেছিলেন তিনি। রানার ব্যাগ থেকে ওএনজিসির ভুয়া সিল ও নথিপত্র পেয়ে তাকে গ্রেফতার করেন জুনমনি। রানা বর্তমানে মাজুলি জেলে বন্দি রয়েছেন।

Tag :
About Author Information

ভারতে ৩শ’ রুপির গয়না ৬ কোটিতে বিক্রি করে মার্কিন নারীর সঙ্গে প্রতারণা।

হবু স্বামীকে গ্রেফতার করে বাহাবা পেয়ে এবার নিজেই গ্রেফতার জুনমনি!

Update Time : ১০:১৫:২৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ৫ জুন ২০২২

প্রতারণার অভিযোগে নিজের বাগদত্তাকে গত মাসে গ্রেফতার করে খবরের শিরোনামে উঠে আসেন ভারতের আসামের পুলিশ কর্মকর্তা জুনমনি রাভা। হবু স্বামীর সঙ্গে জালিয়াতিতে যুক্ত থাকার অভিযোগে শনিবার জুনমনিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

জুনমনি ভারতের আসামের নগাঁও জেলার পুলিশের এসআই। তাকে গত দু’দিন ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করছিল পুলিশ। মাজুলি জেলার একটি আদালত তাকে ১৪ দিনের বিচার বিভাগীয় হেফাজতে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। জুনমনিকে মাজুলি জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

খবরে বলা হয়, দুই ঠিকাদারের অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ওই দুই ঠিকাদার পুলিশের কাছে জানান, তারা জুনমনির প্রাক্তন বাগদত্তা রানা পোগাগের সঙ্গে আর্থিক চুক্তি করেছিলেন। জুনমনিই তাদের সঙ্গে রানার যোগাযোগ করিয়ে দিয়েছিলেন। ঠিকাদারদের অভিযোগ, রানা তাদের টাকা নিয়ে জালিয়াতি করেন এবং এই ঘটনায় জুনমনিও সমানভাবে যুক্ত ছিলেন। এরপরই পুলিশ জুনমনিকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে।

প্রসঙ্গত, ওএনজিসিতে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কয়েক জনের সঙ্গে আর্থিক প্রতারণা করার অভিযোগে ৫ মে রানাকে গ্রেফতার করেন জুনমনি। মাজুলিতে থাকার সময়ই জুনমনির সঙ্গে আলাপ ও প্রেম হয়েছিল রানার। রানা নিজেকে ওএনজিসির জনসংযোগ বিভাগের কর্মকর্তা হিসেবে পরিচয় দিয়েছিলেন। গত বছর ৮ অক্টোবরে ধুমধাম করে তাদের বাগদান পর্ব সম্পন্ন হয়। এরপর নগাঁওতে বদলি হয়ে রানার কুকীর্তির কথা জানতে পারেন বলে জুনমনি- এমনটাই দাবি করেছিলেন তিনি। রানার ব্যাগ থেকে ওএনজিসির ভুয়া সিল ও নথিপত্র পেয়ে তাকে গ্রেফতার করেন জুনমনি। রানা বর্তমানে মাজুলি জেলে বন্দি রয়েছেন।