০১:৫৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৮ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সৌদি বিমানে করে মালদ্বীপ ছাড়লেন গোটাবাইয়া

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৫:৩১:০৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ জুলাই ২০২২
  • 25

গোটাবাইয়া রাজাপাকসে

ব্যাপক গণবিক্ষোভের মুখে গতকাল বুধবার শ্রীলঙ্কা থেকে মালদ্বীপে পালিয়ে যান দেশটির প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষে। আজ বৃহস্পতিবার কিছুক্ষণ আগে তিনি সউদী এয়ারলাইনেসর একটি ফ্লাইটে চড়ে মালদ্বীপ থেকে চলে গেছেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে শ্রীলঙ্কার স্থানীয় গণমাধ্যম ডেইলি মিরর।
নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাত দিয়ে ডেইলি মিরর আরও জানিয়েছে, গোতাবায়া তাঁর স্ত্রী এবং কলম্বো থেকে তাঁর সঙ্গে আসা দুই নিরাপত্তা কর্মকর্তাসহ সিঙ্গাপুরে যাচ্ছেন।
গতকাল মালদ্বীপে পালিয়ে যাওয়ার আগে তিনি প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহেকে ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্টে নিয়োগ করে গেছেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে রনিল বিক্রমাসিংহে দেশে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন এবং পশ্চিম প্রদেশে কারফিউ জারি করেছেন।
রনিল বিক্রমাসিংহে চলমান বিক্ষোভ থামাতে এবং শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে ‘যা যা করা প্রয়োজন তা করতে’ সেনাবাহিনীকে আহ্বান জানিয়েছেন। গতকাল বুধবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এ তথ্য জানিয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি।
প্রধানমন্ত্রীর এমন আহ্বান সেনাবাহিনীকে ক্ষমতা গ্রহণের ইঙ্গিত কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে কলম্বোর একজন মানবাধিকার আইনজীবী ভবানী ফনসেকা বিবিসি ওয়ার্ল্ডকে বলেছেন, ‘শ্রীলঙ্কার ইতিহাসে এমন কোনো নজির নেই যে সেনাবাহিনী সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছে। সেনাবাহিনী সব সময়ই সরকার ও রাজনীতি থেকে দূরে থেকেছে।’
ভবানী ফনসেকা আরও বলেছেন, ‘আমাদের খুবই শক্তিশালী গণতন্ত্র ছিল। গণতন্ত্রের পথ ধরেই প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছে। কিন্তু আমরা এখন এক ভয়ংকর পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছি। এখন যেকোনো কিছুই ঘটা সম্ভব।’ সূত্র : ডেইলি মিরর

Tag :
About Author Information

জনপ্রিয় সংবাদ

একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

সৌদি বিমানে করে মালদ্বীপ ছাড়লেন গোটাবাইয়া

Update Time : ০৫:৩১:০৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ জুলাই ২০২২

ব্যাপক গণবিক্ষোভের মুখে গতকাল বুধবার শ্রীলঙ্কা থেকে মালদ্বীপে পালিয়ে যান দেশটির প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষে। আজ বৃহস্পতিবার কিছুক্ষণ আগে তিনি সউদী এয়ারলাইনেসর একটি ফ্লাইটে চড়ে মালদ্বীপ থেকে চলে গেছেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে শ্রীলঙ্কার স্থানীয় গণমাধ্যম ডেইলি মিরর।
নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাত দিয়ে ডেইলি মিরর আরও জানিয়েছে, গোতাবায়া তাঁর স্ত্রী এবং কলম্বো থেকে তাঁর সঙ্গে আসা দুই নিরাপত্তা কর্মকর্তাসহ সিঙ্গাপুরে যাচ্ছেন।
গতকাল মালদ্বীপে পালিয়ে যাওয়ার আগে তিনি প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহেকে ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্টে নিয়োগ করে গেছেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে রনিল বিক্রমাসিংহে দেশে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন এবং পশ্চিম প্রদেশে কারফিউ জারি করেছেন।
রনিল বিক্রমাসিংহে চলমান বিক্ষোভ থামাতে এবং শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে ‘যা যা করা প্রয়োজন তা করতে’ সেনাবাহিনীকে আহ্বান জানিয়েছেন। গতকাল বুধবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এ তথ্য জানিয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি।
প্রধানমন্ত্রীর এমন আহ্বান সেনাবাহিনীকে ক্ষমতা গ্রহণের ইঙ্গিত কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে কলম্বোর একজন মানবাধিকার আইনজীবী ভবানী ফনসেকা বিবিসি ওয়ার্ল্ডকে বলেছেন, ‘শ্রীলঙ্কার ইতিহাসে এমন কোনো নজির নেই যে সেনাবাহিনী সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছে। সেনাবাহিনী সব সময়ই সরকার ও রাজনীতি থেকে দূরে থেকেছে।’
ভবানী ফনসেকা আরও বলেছেন, ‘আমাদের খুবই শক্তিশালী গণতন্ত্র ছিল। গণতন্ত্রের পথ ধরেই প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছে। কিন্তু আমরা এখন এক ভয়ংকর পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছি। এখন যেকোনো কিছুই ঘটা সম্ভব।’ সূত্র : ডেইলি মিরর