০২:৩৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সুইস ব্যাংকে জমা অর্থ নিয়ে তথ্য চায়নি বাংলাদেশ: রাষ্ট্রদূত

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৮:১৩:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২
  • 32

সুইস ব্যাংকে জমা করা অর্থ নিয়ে সুইজারল্যান্ড সরকারের কাছে বাংলাদেশ সরকার কোনো সুনির্দিষ্ট তথ্য চায়নি বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (ডিকাব) আয়োজিত ‘ডিকাব টক’ নামের একটি অনুষ্ঠানে সুইস রাষ্ট্রদূত এ কথা বলেন।

নাতালি চুয়ার্ড বলেন, “বাংলাদেশিরা কত টাকা জমা রেখেছে ওই তথ্য প্রতিবছর সুইস ন্যাশনাল ব্যাংক দিয়ে থাকে এবং ওই অর্থ অবৈধপথে আয় করা হয়েছে কি না, এটি আমাদের পক্ষে বলা সম্ভব নয়।”

তিনি বলেন, “তথ্য পেতে হলে কী করতে হবে, সে সম্পর্কে আমরা সরকারকে জানিয়েছি, কিন্তু নির্দিষ্ট কোনো তথ্যের জন্য আমাদের কাছে অনুরোধ করা হয়নি। আমরা আন্তর্জাতিক মানদণ্ড বজায় রাখার ক্ষেত্রে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। দুই পক্ষের সম্মতির ভিত্তিতে এ ধরনের তথ্য আদান-প্রদান করা সম্ভব এবং সেটি তৈরি করতে হবে। এটি নিয়ে আমরা বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করছি।”

নাতালি চুয়ার্ড বলেন, “আমাদের ব্যাংকগুলো অবৈধ অর্থ রাখার নিরাপদ স্থান নয়। বৈশ্বিক আর্থিক খাতে সুইস ব্যাংকগুলো বিভিন্ন ধরনের সংস্কার করেছে, নতুন ও উন্নত মানদণ্ড তৈরি করছে এবং তারা অবৈধ অর্থ রাখার জন্য প্রলুব্ধ করে।”

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে তিনি বলেন, “রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে আমরা যতটুকু সম্ভব সহযোগিতা করছি। এ বিষয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আলোচনা করব।”

সুইস সরকার বিগত ৫০ বছর ধরে বাংলাদেশকে সহযোগিতা করছে এবং আগামী দিনগুলোতে এ সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলেও জানান রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড।
এসএ/

Tag :
About Author Information

দেশের ৮৭ উপজেলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে

সুইস ব্যাংকে জমা অর্থ নিয়ে তথ্য চায়নি বাংলাদেশ: রাষ্ট্রদূত

Update Time : ০৮:১৩:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২

সুইস ব্যাংকে জমা করা অর্থ নিয়ে সুইজারল্যান্ড সরকারের কাছে বাংলাদেশ সরকার কোনো সুনির্দিষ্ট তথ্য চায়নি বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (ডিকাব) আয়োজিত ‘ডিকাব টক’ নামের একটি অনুষ্ঠানে সুইস রাষ্ট্রদূত এ কথা বলেন।

নাতালি চুয়ার্ড বলেন, “বাংলাদেশিরা কত টাকা জমা রেখেছে ওই তথ্য প্রতিবছর সুইস ন্যাশনাল ব্যাংক দিয়ে থাকে এবং ওই অর্থ অবৈধপথে আয় করা হয়েছে কি না, এটি আমাদের পক্ষে বলা সম্ভব নয়।”

তিনি বলেন, “তথ্য পেতে হলে কী করতে হবে, সে সম্পর্কে আমরা সরকারকে জানিয়েছি, কিন্তু নির্দিষ্ট কোনো তথ্যের জন্য আমাদের কাছে অনুরোধ করা হয়নি। আমরা আন্তর্জাতিক মানদণ্ড বজায় রাখার ক্ষেত্রে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। দুই পক্ষের সম্মতির ভিত্তিতে এ ধরনের তথ্য আদান-প্রদান করা সম্ভব এবং সেটি তৈরি করতে হবে। এটি নিয়ে আমরা বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করছি।”

নাতালি চুয়ার্ড বলেন, “আমাদের ব্যাংকগুলো অবৈধ অর্থ রাখার নিরাপদ স্থান নয়। বৈশ্বিক আর্থিক খাতে সুইস ব্যাংকগুলো বিভিন্ন ধরনের সংস্কার করেছে, নতুন ও উন্নত মানদণ্ড তৈরি করছে এবং তারা অবৈধ অর্থ রাখার জন্য প্রলুব্ধ করে।”

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে তিনি বলেন, “রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে আমরা যতটুকু সম্ভব সহযোগিতা করছি। এ বিষয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আলোচনা করব।”

সুইস সরকার বিগত ৫০ বছর ধরে বাংলাদেশকে সহযোগিতা করছে এবং আগামী দিনগুলোতে এ সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলেও জানান রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড।
এসএ/