সামরিক অভ্যুত্থানের মুখে পড়তে পারে যুক্তরাষ্ট্র। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ফলাফল নিয়ে ২০২৪ সালে কোনও ধরনের বিতর্ক সৃষ্টি হলে বিপদজনক পরিস্থিতিতে পরবে যুক্তরাষ্ট্র।

নিজস্ব প্রতিবেদকনিজস্ব প্রতিবেদক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  05:15 PM, 02 January 2022

মিয়ানমারসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশেই সামরিক অভ্যুত্থানের ঘটনা ঘটেছে গত কয়েক বছরে। তবে এবার খোদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই সামরিক অভ্যুত্থানের আশঙ্কা করলেন দেশটির একজন সাবেক জেনারেল। তাঁর দাবি, আসন্ন ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ফলাফল নিয়ে কোনও ধরনের বিতর্ক সৃষ্টি হলে সামরিক অভ্যুত্থানের মুখে পড়তে পারে যুক্তরাষ্ট্র।

গত বছরের আলোচিত ক্যাপিটল হিলে হামলার বার্ষিকীকে সামনে রেখে সম্প্রতি মার্কিন গণমাধ্যম এনপিআরকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনই আশঙ্কার কথা জানান পল এইটোন নামে সাবেক এই মেজর জেনারেল। তিনি সতর্ক করে বলেন, ওই নির্বাচনের পর কে কমান্ডার ইন চিফ হবেন- এ নিয়ে পরস্পরবিরোধী দাবির মুখে সামরিক বাহিনী অস্থিতিশীল হয়ে উঠতে পারে এবং তখন সামরিক অভ্যুত্থানের মতো পরিস্থিতিও দেখা দিতে পারে।

অবসরপ্রাপ্ত ওই মার্কিন জেনারেল আরও বলেন, আগামী নির্বাচনের ফল নিয়ে যদি আবারও বিতর্ক সৃষ্টি হয়, তাহলে সামরিক বাহিনীর অনেক সদস্যই বুঝে উঠতে পারবেন না যে, তাঁরা কার নির্দেশে চলবেন।

পূর্বেকার অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরে পল এইটোন বলেন, ২০২০ সালের নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ করে ১২৪ জন অবসরপ্রাপ্ত জেনারেল ও অ্যাডমিরাল একটি চিঠিতে সই করেছিলেন। তখনও এই ধরনের সম্ভাবনা জোরদার হয়ে উঠেছিল।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জো বাইডেন বিজয়ী হলেও তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজেকে বিজয়ী দাবি করে ক্ষমতা ছাড়তে অস্বীকৃতি জানান। এ অবস্থায় গত বছরের ৬ জানুয়ারি তার উগ্রবাদী সমর্থকরা কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটল হিলে হামলা চালায়। ওই হামলার আগে ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজেই উসকানি দিয়েছিলেন- বলেই অনেক প্রমাণ আছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে নজিরবিহীন ওই ঘটনায় দেশটির গণতান্ত্রিক ভাবমর্যাদা ব্যাপকভাবে ক্ষুণ্ন হয় এবং দেশটির রাজনীতি মারাত্মকভাবে বিভক্ত হয়ে পড়ে। আগামীতে আবারও একই ধরনের ঘটনা ঘটলে, বিশ্ব মোড়ল এ দেশটি আরও বেশি অস্থিতিশীল হয়ে উঠবে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এদিকে, এরই মধ্যে আগামী ২০২৪ সালের নির্বাচনে অংশ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। বাইডেনও একই লক্ষ্যে প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে খবরে প্রকাশ।