০৩:৪৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সমা‌হিত করা হ‌লো পাইলট ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইউয়ুমকে।

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৫:০২:২৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • 33

আজ বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) সকাল সোয়া ৯টার দিকে বাংলাদেশ বিমানের বিজি-০২৬ ফ্লাইটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের পাইলট ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইউয়ুমের মরদেহ মৃতদেহ পৌঁছায়।

বাংলাদেশ বিমানের ক্যাপ্টেন আবু সাপা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বাদ জোহর বাংলাদেশ বিমানের প্রধান কার্যালয় বলাকা ভবনের সামনে ক্যাপ্টেন নওশাদের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর বনানী কবরস্থানে মায়ের কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (২৭ আগস্ট) সকালে ওমানের মাস্কাট থেকে ১২৪ যাত্রী নিয়ে বিজি-০২২ ফ্লাইটটি ঢাকা আসার পথে ভারতের আকাশে থাকা অবস্থায় ক্যাপ্টেন নওশাদ অসুস্থ বোধ করেন। পরে ফ্লাইটটিকে মহারাষ্ট্রের নাগপুরের ড. বাবাসাহেব আম্বেদকর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করানো হয়।

আকাশে অসুস্থ হয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই ক্যাপ্টেন নওশাদ ফ্লাইটটিকে কলকাতার এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের (এটিসি) কাছে জরুরি অবতরণের অনুরোধ জানান। একই সময় তিনি কো-পাইলটের কাছে ফ্লাইটের নিয়ন্ত্রণ হস্তান্তর করেন।

কলকাতার এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল ফ্লাইটটিকে কাছের নাগপুর বিমানবন্দরে অবতরণ করার নির্দেশ দিলে কো-পাইলট ক্যাপ্টেন মুস্তাকিম ফ্লাইটটি অবতরণ করান। ওইদিনই আরেকটি ফ্লাইটে করে আট সদস্যের একটি উদ্ধারকারী দল নাগপুরে যায়। মধ্যরাতের পর প্লেনটিকে যাত্রীসহ ঢাকার বিমানবন্দরে নিয়ে আসা হয়।

জরুরি অবতরণের পরপরই পাইলট নওশাদকে স্থানীয় হোপ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে পরবর্তীতে তাকে নাগপুরের কিংসওয়ে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

গত রোববার (২৯ আগস্ট) হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

Tag :
About Author Information

দেশের ৮৭ উপজেলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে

সমা‌হিত করা হ‌লো পাইলট ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইউয়ুমকে।

Update Time : ০৫:০২:২৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর ২০২১

আজ বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) সকাল সোয়া ৯টার দিকে বাংলাদেশ বিমানের বিজি-০২৬ ফ্লাইটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের পাইলট ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইউয়ুমের মরদেহ মৃতদেহ পৌঁছায়।

বাংলাদেশ বিমানের ক্যাপ্টেন আবু সাপা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বাদ জোহর বাংলাদেশ বিমানের প্রধান কার্যালয় বলাকা ভবনের সামনে ক্যাপ্টেন নওশাদের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর বনানী কবরস্থানে মায়ের কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (২৭ আগস্ট) সকালে ওমানের মাস্কাট থেকে ১২৪ যাত্রী নিয়ে বিজি-০২২ ফ্লাইটটি ঢাকা আসার পথে ভারতের আকাশে থাকা অবস্থায় ক্যাপ্টেন নওশাদ অসুস্থ বোধ করেন। পরে ফ্লাইটটিকে মহারাষ্ট্রের নাগপুরের ড. বাবাসাহেব আম্বেদকর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করানো হয়।

আকাশে অসুস্থ হয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই ক্যাপ্টেন নওশাদ ফ্লাইটটিকে কলকাতার এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের (এটিসি) কাছে জরুরি অবতরণের অনুরোধ জানান। একই সময় তিনি কো-পাইলটের কাছে ফ্লাইটের নিয়ন্ত্রণ হস্তান্তর করেন।

কলকাতার এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল ফ্লাইটটিকে কাছের নাগপুর বিমানবন্দরে অবতরণ করার নির্দেশ দিলে কো-পাইলট ক্যাপ্টেন মুস্তাকিম ফ্লাইটটি অবতরণ করান। ওইদিনই আরেকটি ফ্লাইটে করে আট সদস্যের একটি উদ্ধারকারী দল নাগপুরে যায়। মধ্যরাতের পর প্লেনটিকে যাত্রীসহ ঢাকার বিমানবন্দরে নিয়ে আসা হয়।

জরুরি অবতরণের পরপরই পাইলট নওশাদকে স্থানীয় হোপ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে পরবর্তীতে তাকে নাগপুরের কিংসওয়ে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

গত রোববার (২৯ আগস্ট) হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।