যুক্তরা‌জ্যের বি‌ভিন্ন গুদা‌মে র‌ক্ষিত অ্যামাজন তা‌দের লক্ষ লক্ষ পণ্য ধ্বংশ করছে।

joybd24joybd24
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  04:49 PM, 24 June 2021

‌বিক্রি না হওয়া প্রায় কয়েক মিলিয়ন পণ্য ধ্বংসের অভিযোগ উঠেছে অনলাইন জায়ান্ট অ্যামাজনের বিরুদ্ধে। এই পণ্যগুলো প্রায়শই নতুন কিংবা অব্যবহৃত।

আইটিভি নিউজের অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এমন অভিযোগ। প্রতিবেদন অনুযায়ী, যুক্তরাজ্যের একটি গুদামের বিপুল পরিমাণ পণ্য ধ্বংস করে অ্যামাজন। যুক্তরাজ্যে এরকম মোট ২৪টি গুদাম রয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

ডানফার্মলাইনে অ্যামাজনের গুদামে গোপনে ধারণ করা ভিডিও ফুটেজে প্রমাণ মেলে অভিযোগের। এতে দেখা যায়, স্মার্ট টিভি, ল্যাপটপ, ড্রোন, হেয়ার ড্রায়ার, দামি হেডফোন, কম্পিউটারের যন্ত্রয়াংশ, বই ও হাজার হাজার মাস্ক ধ্বংসের জন্য আলাদা করে রাখা হয়েছে।

বলা হয়, এই পণ্যগুলো বিক্রি হয়নি অথবা গ্রাহকদের কাছ থেকে ফেরত এসেছে। এর সবই দাতব্য সংস্থাগুলোতে বা অভাবীদের মাঝে পুনরায় বিতরণ করা যেত। অথচ, সেগুলো বিশালাকার আবর্জনার পাত্রে ছুড়ে দেওয়া হয় এবং লরির মাধ্যমে সেগুলো রিসাইক্লিন সেন্টার বা ল্যান্ডফিলে ফেলে আসা হয়।

ই‌তিম‌ধ্যে ফ্রা‌ন্সের গুদা‌মে র‌ক্ষিত অ্যামজ‌নের প্রায় ৩ মি‌লিয়ন অ‌বি‌ক্রিত ও ফেরৎ পণ্য ধ্বংশ ক‌রে‌ছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে অ্যামাজনের একজন প্রাক্তন কর্মচারী বলেন, আমাদের লক্ষ্য ছিল এক সপ্তাহে ১ লাখ ৩০ হাজার আইটেম ধ্বংস করা। কোন জিনিসগুলো ধ্বংস করা হবে এবং কেন করা হবে সেটার কোনো ঠিকঠিকানা ছিল না। কখনো ডায়সন ফ্যান, হুভার, আবার কখনো ম্যাকবুক, আইপ্যাড, অন্যদিন হয়তো প্যাকেটে মোড়ানো ২০ হাজার কোভিড মাস্ক ধ্বংস করতে বলা হয়।

তিনি আরো জানান, এসমস্ত আইটেমের প্রায় ৫০ শতাংশই মোড়কের ভেতর থাকে, যা খোলা হয়নি। বাকিগুলো গ্রাহকদের ফেরত পাঠানো এবং ভালো কন্ডিশনে থাকে। এগুলোকে ধ্বংসের নির্দেশ শুনে কর্মীরা অসাড় হয়ে পরেন।

এপ্রিলের এক সপ্তাহের মধ্যে ডানফর্মলাইন গুদামের একটি ফাঁস হওয়া নথিতে ১ লাখ ২৪ হাজারেরও বেশি আইটেমকে ‘ডেস্ট্রয়’ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছিল। বিপরীতে, একই সময়ে কেবল ২৮ হাজার আইটেম ‘ডোনেশন’ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছিল।

এভাবে লাখ লাখ পণ্য কেন ধ্বংস করা হচ্ছে? উত্তর হচ্ছে, অ্যামাজনের সফল ব্যবসায়িক মডেল। অনেক বিক্রেতা তাদের পণ্য অ্যামাজনের বিশাল গুদামে রাখতে পছন্দ করেন। কিন্তু এই পণ্যগুলো যতো বেশি সময় গুদামে রাখা হবে, বিপরীতে চার্জও বেশি দিতে হয়। এভাবে গুদামে সেগুলো সংরক্ষণ চালিয়ে যাওয়ার তুলনায় নতুন পণ্য আনা এবং পুরানোগুলো ফেলে দেওয়া বেশি সাশ্রয়ী।

আইটিভির এই তদন্তের কথা জানার আগে একটি সাক্ষাৎকারে অ্যামাজনের ইউকে প্রধান জানান, এভাবে ধ্বংস করা আইটেমের সংখ্যা খুবই নগণ্য।