১০:০৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে সিরিয়ান শরণার্থীরা হ‌চ্ছে আটক, গুম ও ধর্ষ‌ণের শিকার।

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৩:০৪:৫২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • 47

বিদেশ থেকে দেশে ফেরা সিরিয়ান শরণার্থীরা নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে আটক, গুম ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল মঙ্গলবার এ কথা জানিয়েছে। একইসঙ্গে সংস্থাটি সতর্ক করে বলেছে, সিরিয়া এখনও প্রত্যাবাসনের জন্য নিরাপদ নয়।

অ্যামনেস্টি ‘ইউ আর গোয়িং টু ইউর ডেথ’ শিরোনামের রিপোর্টে ২০১৭ সাল থেকে দেশে ফেরা ১৩ শিশুসহ ৬৬ জন সিরিয়ানের বিরুদ্ধে নিরাপত্তা বাহিনীর একের পর এক নিয়ম লংঘনের চিত্র তুলে ধরে বলেছে, এসব বিষয় এটাই প্রমাণ করে যে দেশটি এখনও প্রত্যাবাসনের জন্য নিরাপদ নয়।

সংস্থাটি আরো বলছে, সিরিয়ার গোয়েন্দা কর্মকর্তারা ফিরে আসা নারী, শিশু ও পুরুষদের বেআইনীভাবে আটক, নির্যতন এবং ধর্ষণ ও যৌন হয়রানিসহ নানা ধরনের হয়রানি করছে।

সংস্থা আটকাবস্থায় মারা যাওয়া পাঁচটি ঘটনার কথাও তুলে ধরেছে। এছাড়া গুম হওয়া আরো ১৭ জনের ভাগ্যে কি ঘটেছে তাও এখনও অজানা বলে উল্লেখ করেছে।

অ্যামনেস্টি নিরাপত্তা বাহিনীর যৌন হয়রানির ১৪টি ঘটনা তুলে ধরে। এর মধ্যে সাতটি ধর্ষণের ঘটনাও রয়েছে।

সিরিয়ায় ২০১১ সালে গৃহযুদ্ধ শুরুর পর ৬৬ লাখেরও বেশি লোক দেশ ছাড়ে। বেশিরভাগই তুরস্ক ও লেবাননের মতো প্রতিবেশী দেশগুলোতে আশ্রয় নেয়।

কিন্তু সম্প্রতি ডেনমার্ক, সুইডেন ও তুরস্ক দেশে ফিরে যাওয়ার জন্য শরণার্থীদের চাপ দিতে শুরু করেছে।

Tag :
About Author Information

দেশের ৮৭ উপজেলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে

নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে সিরিয়ান শরণার্থীরা হ‌চ্ছে আটক, গুম ও ধর্ষ‌ণের শিকার।

Update Time : ০৩:০৪:৫২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

বিদেশ থেকে দেশে ফেরা সিরিয়ান শরণার্থীরা নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে আটক, গুম ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল মঙ্গলবার এ কথা জানিয়েছে। একইসঙ্গে সংস্থাটি সতর্ক করে বলেছে, সিরিয়া এখনও প্রত্যাবাসনের জন্য নিরাপদ নয়।

অ্যামনেস্টি ‘ইউ আর গোয়িং টু ইউর ডেথ’ শিরোনামের রিপোর্টে ২০১৭ সাল থেকে দেশে ফেরা ১৩ শিশুসহ ৬৬ জন সিরিয়ানের বিরুদ্ধে নিরাপত্তা বাহিনীর একের পর এক নিয়ম লংঘনের চিত্র তুলে ধরে বলেছে, এসব বিষয় এটাই প্রমাণ করে যে দেশটি এখনও প্রত্যাবাসনের জন্য নিরাপদ নয়।

সংস্থাটি আরো বলছে, সিরিয়ার গোয়েন্দা কর্মকর্তারা ফিরে আসা নারী, শিশু ও পুরুষদের বেআইনীভাবে আটক, নির্যতন এবং ধর্ষণ ও যৌন হয়রানিসহ নানা ধরনের হয়রানি করছে।

সংস্থা আটকাবস্থায় মারা যাওয়া পাঁচটি ঘটনার কথাও তুলে ধরেছে। এছাড়া গুম হওয়া আরো ১৭ জনের ভাগ্যে কি ঘটেছে তাও এখনও অজানা বলে উল্লেখ করেছে।

অ্যামনেস্টি নিরাপত্তা বাহিনীর যৌন হয়রানির ১৪টি ঘটনা তুলে ধরে। এর মধ্যে সাতটি ধর্ষণের ঘটনাও রয়েছে।

সিরিয়ায় ২০১১ সালে গৃহযুদ্ধ শুরুর পর ৬৬ লাখেরও বেশি লোক দেশ ছাড়ে। বেশিরভাগই তুরস্ক ও লেবাননের মতো প্রতিবেশী দেশগুলোতে আশ্রয় নেয়।

কিন্তু সম্প্রতি ডেনমার্ক, সুইডেন ও তুরস্ক দেশে ফিরে যাওয়ার জন্য শরণার্থীদের চাপ দিতে শুরু করেছে।