০৬:০০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দুর্যোগ মোকাবেলায় বাংলাদেশ অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে : চসিক মেয়র

  • Reporter Name
  • Update Time : ১০:৩১:৫৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ জুন ২০২২
  • 36

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, বাংলাদেশ বিশ্বের একটি অন্যতম দুর্যোগপ্রবণ দেশ হিসেবে যেমন চিহ্নিত তেমনি দুর্যোগ মোকাবেলায় অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপনকারী দেশ হিসেবেও স্বীকৃত। আজ সকালে নগরীর থিয়োটার ইনস্টিটিউটে নগর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
মেয়র বলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে দেশের এই সফলতার চাবিকাঠি হচ্ছে দুর্যোগ ব্যবস্থপনার নীতিমালাসমূহ। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন যেকোনো দুর্যোগ মোকাবেলায় অনন্য দায়িত্ব পালন করে আসছে। বিগত করোনা মোকাবেলায় সারাদেশের মধ্যে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উল্লেখ্যযোগ্য ভূমিকার কারণে দেশব্যাপী আমাদের কর্মকা-কে অনুসরণ করতে বাধ্য হয়েছে। নগরীতে ইতোমধ্যে ৪১ টি ওয়ার্ডে নগর স্বেচ্ছাসেবক ব্যবস্থাপনার নীতিমালা অনুসরণ করে কমিটি গঠন করা হয়েছে। সেভ দ্য চিনড্রেন প্রয়াসের সহায়তার নগরীর ৪ টি ওয়ার্ডে ঝুঁকি হ্রাসে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। আজ এই কর্মশালায় কাউন্সিলরগণ দুর্যোগ মোকাবেলায় তাদের ভূমিকা ও করণীয় সর্ম্পকে অবহিত হয়ে তা বাস্তবে প্রয়োগ করবেন বলে আশা করি।
তিনি বলেন, আমরা দুর্যোগ মোকাবেলা করে যে অভিজ্ঞতা অর্জন করি তা সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারলে বড় কোন প্রশিক্ষণের প্রয়োজন পড়ে না। সম্প্রতি সীতাকু-ে সংঘটিত অগ্নিকা- ও বিস্ফোরণ হয়েছে। তাতে আমাদের স্বেচ্ছাসেবকেরা যেভাবে ঝাঁপিয়ে পড়ে দিনের পর দিন কাজ করেছে এই কাজ থেকে যে অভিজ্ঞতা তারা অর্জন করেছে এর থেকে বড় প্রশিক্ষণ হতে পারে না।
চসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলমের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ড. নুরুন্নাহার চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইপসার প্রধান নির্বাহী মো. আরিফুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিম, বর্জ্য বস্থাপনা স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর মোবারক আলী, সচিব খালেদ মাহমুদ, সেভ দ্য চিলড্রেনের পরিচালক মোস্তাক হোসেন, প্রকৌশলী ড. তারেক বীন ইউসুফ, ইপসার নাছিমা বানু, ইপসার পরিচালক পলাশ কুমার চৌধুরী প্রমুখ।
বিশেষ অতিথি ড. নুরুন্নাহার চৌধুরী বলেন, এ ধরণের কর্মশালা আয়োজন আজকের প্রেক্ষাপটে সময়ের দাবি। ঝুঁকি হ্রাস, ঝুঁকির জন্য জরুরি সেবা প্রদান এবং ঝুঁকি মোকাবেলায় কি ধরণের প্রস্ততি গ্রহণ করা দরকার এসব বিষয়ে অবগত হওয়ার জন্য কর্মশালার প্রয়োজন রয়েছে। প্রশিক্ষিত স্বেচ্ছাসেবক তৈরি করা না গেলে দুর্যোগ মোকাবেলা কঠিন হয়ে পড়ে। তিনি জন প্রতিনিধিদের সম্পৃক্ততার মাধ্যমে দুর্যোগ মোকাবেলায় সচেতনতা সৃষ্টি করতে পারলে এই কর্মশালা সার্থক হবে।

Tag :
About Author Information

ভারতে ৩শ’ রুপির গয়না ৬ কোটিতে বিক্রি করে মার্কিন নারীর সঙ্গে প্রতারণা।

দুর্যোগ মোকাবেলায় বাংলাদেশ অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে : চসিক মেয়র

Update Time : ১০:৩১:৫৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ জুন ২০২২

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, বাংলাদেশ বিশ্বের একটি অন্যতম দুর্যোগপ্রবণ দেশ হিসেবে যেমন চিহ্নিত তেমনি দুর্যোগ মোকাবেলায় অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপনকারী দেশ হিসেবেও স্বীকৃত। আজ সকালে নগরীর থিয়োটার ইনস্টিটিউটে নগর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
মেয়র বলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে দেশের এই সফলতার চাবিকাঠি হচ্ছে দুর্যোগ ব্যবস্থপনার নীতিমালাসমূহ। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন যেকোনো দুর্যোগ মোকাবেলায় অনন্য দায়িত্ব পালন করে আসছে। বিগত করোনা মোকাবেলায় সারাদেশের মধ্যে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উল্লেখ্যযোগ্য ভূমিকার কারণে দেশব্যাপী আমাদের কর্মকা-কে অনুসরণ করতে বাধ্য হয়েছে। নগরীতে ইতোমধ্যে ৪১ টি ওয়ার্ডে নগর স্বেচ্ছাসেবক ব্যবস্থাপনার নীতিমালা অনুসরণ করে কমিটি গঠন করা হয়েছে। সেভ দ্য চিনড্রেন প্রয়াসের সহায়তার নগরীর ৪ টি ওয়ার্ডে ঝুঁকি হ্রাসে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। আজ এই কর্মশালায় কাউন্সিলরগণ দুর্যোগ মোকাবেলায় তাদের ভূমিকা ও করণীয় সর্ম্পকে অবহিত হয়ে তা বাস্তবে প্রয়োগ করবেন বলে আশা করি।
তিনি বলেন, আমরা দুর্যোগ মোকাবেলা করে যে অভিজ্ঞতা অর্জন করি তা সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারলে বড় কোন প্রশিক্ষণের প্রয়োজন পড়ে না। সম্প্রতি সীতাকু-ে সংঘটিত অগ্নিকা- ও বিস্ফোরণ হয়েছে। তাতে আমাদের স্বেচ্ছাসেবকেরা যেভাবে ঝাঁপিয়ে পড়ে দিনের পর দিন কাজ করেছে এই কাজ থেকে যে অভিজ্ঞতা তারা অর্জন করেছে এর থেকে বড় প্রশিক্ষণ হতে পারে না।
চসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলমের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ড. নুরুন্নাহার চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইপসার প্রধান নির্বাহী মো. আরিফুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিম, বর্জ্য বস্থাপনা স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর মোবারক আলী, সচিব খালেদ মাহমুদ, সেভ দ্য চিলড্রেনের পরিচালক মোস্তাক হোসেন, প্রকৌশলী ড. তারেক বীন ইউসুফ, ইপসার নাছিমা বানু, ইপসার পরিচালক পলাশ কুমার চৌধুরী প্রমুখ।
বিশেষ অতিথি ড. নুরুন্নাহার চৌধুরী বলেন, এ ধরণের কর্মশালা আয়োজন আজকের প্রেক্ষাপটে সময়ের দাবি। ঝুঁকি হ্রাস, ঝুঁকির জন্য জরুরি সেবা প্রদান এবং ঝুঁকি মোকাবেলায় কি ধরণের প্রস্ততি গ্রহণ করা দরকার এসব বিষয়ে অবগত হওয়ার জন্য কর্মশালার প্রয়োজন রয়েছে। প্রশিক্ষিত স্বেচ্ছাসেবক তৈরি করা না গেলে দুর্যোগ মোকাবেলা কঠিন হয়ে পড়ে। তিনি জন প্রতিনিধিদের সম্পৃক্ততার মাধ্যমে দুর্যোগ মোকাবেলায় সচেতনতা সৃষ্টি করতে পারলে এই কর্মশালা সার্থক হবে।