জাকারিয়া নোমান ফয়েজীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা।

জয়‌বি‌ডিজয়‌বি‌ডি
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  12:07 PM, 07 May 2021

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক জাকারিয়া নোমান ফয়েজীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করা হয়েছে। চট্টগ্রামের হাটহাজারী থানায় গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে এক নারী বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

মামলায় বলা হয়, ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে ফেসবুকের মাধ্যমে ওই নারীর সঙ্গে জাকারিয়া নোমান ফয়েজীর পরিচয় হয়। ফেসবুক মেসেঞ্জার ও হোয়াটসঅ্যাপ চ‍্যাটিংয়ের মাধ্যমে তিনি ওই নারীকে ফুসলাতে থাকেন। এর মধ্যে ওই নারীকে বিয়ের প্রলোভন দেখান এবং হাটহাজারীতে আসতে বলেন।

পরে ওই নারী হাটহাজারীতে এলে তাঁকে ২০১৯ সালের নভেম্বরে একটি ভবনের নিচতলায় বাসা ভাড়া করে দেন ফয়েজী। এক বছর ধরে ভাড়া বাসায় অবস্থানকালে ওই নারীকে বিভিন্ন সময় ধর্ষণ করেন তিনি।

মামলায় আরও বলা হয়, পরে হাটহাজারী থেকে চট্টগ্রাম শহরে খালার বাসায় চলে যান ওই নারী। এর পরও বিভিন্ন বাড়িতে ও হোটেলে নিয়ে গিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই নারীকে ধর্ষণ করেন ফয়েজী।

এরপর ওই নারী গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে বাদী হয়ে হাটহাজারী থানায় লিখিত এজাহার দাখিল করলে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা রুজু হয়। থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. মুকিব হাসানের ওপর মামলার তদন্তভার ন্যস্ত করা হয়েছে।

এর আগে সহিংসতার এক মামলায় ফয়েজীর পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন চট্টগ্রামের একটি আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে চট্টগ্রাম জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শাহরিয়ার ইকবাল রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে ফয়েজীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানান পুলিশ সুপার (এসপি) এস এম রশিদুল হক।

এর আগে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসপি এস এম রশিদুল হক জানান, একাধিক নারীর সঙ্গে বিবাহবহির্ভূত শারীরিক সম্পর্ক ছিল বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন হেফাজত নেতা জাকারিয়া নোমান ফয়েজী। এ ছাড়া সারা দেশে সহিংসতার ঘটনার সঙ্গে কখনও সরাসরি, কখনও ইন্ধনদাতা, কখনও নিজেও সরাসরি সম্পৃক্ত ছিলেন বলে তিনি স্বীকার করেছেন।

এসপি আরও জানান, গত ২৬ মার্চ হাটহাজারীতে পুলিশের সঙ্গে হেফাজতকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ততা এবং হাটহাজারীতে থানা, ডাকবাংলো, সহকারী কমিশনারের (ভূমি) কার্যালয় ভাঙচুরের সঙ্গে ফয়েজী জড়িত ছিলেন বলে পুলিশকে জানিয়েছেন। এসব ঘটনার মাধ্যমে দেশকে অস্থিতিশীল করে তোলার লক্ষ্য ছিল বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন তিনি।

এর আগে গত বুধবার বিকেলে কক্সবাজারের চকরিয়া থেকে জাকারিয়া নোমান ফয়েজীকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেছিল পুলিশ।

আপনার মতামত লিখুন :