১০:০৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চা বাগানের শ্রমিক ধর্মঘট প্রত্যাহার : মজুরি ১৪৫ টাকা নির্ধারণ

  • Reporter Name
  • Update Time : ০১:৫৫:৪৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ অগাস্ট ২০২২
  • 10

চা-শ্রমিকদের মজুরি ১৪৫ টাকা নির্ধারণ করার পর চলমান অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছে চা-শ্রমিকরা। শনিবার বিকেল ৩টায় সরকারের সঙ্গে বৈঠকের পর চা-শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নিপেন পাল এ ঘোষণা দেন।
নিপেন পাল বলেন, চা-শ্রমিকদের মজুরি ১২০ টাকা থেকে ২৫ টাকা বাড়িয়ে ১৪৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্বাসে সরকারের এই প্রস্তাব শ্রমিকেরা মেনে নিয়েছে।
বিকেলে জেলার শ্রীমঙ্গল শ্রম দপ্তরে চা-শ্রমিকদের মজুরি নিয়ে এক বৈঠক বসে। বৈঠক শেষে চা-শ্রমিকরা ১৪৫ টাকা মজুরির প্রস্তাব মেনে নেয় ও ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয়। কাল থেকে কাজে যোগ দেবে শ্রমিকরা।
সভায় স্থানীয় সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ, বাংলাদেশ শ্রম অধিদপ্তরে মহাপরিচালক খালেদ মামুন চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া, চা-শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নিপেন পাল, সাংগঠনিক সম্পাদক বিজয় হাজরাসহ অন্যান্যরা।
গত ৯ আগস্ট থেকে চা-শ্রমিকরা ৩০০ টাকা মজুরির দাবিতে সারা দেশের চা বাগানে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু করে।

Tag :
About Author Information

একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

চা বাগানের শ্রমিক ধর্মঘট প্রত্যাহার : মজুরি ১৪৫ টাকা নির্ধারণ

Update Time : ০১:৫৫:৪৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ অগাস্ট ২০২২

চা-শ্রমিকদের মজুরি ১৪৫ টাকা নির্ধারণ করার পর চলমান অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছে চা-শ্রমিকরা। শনিবার বিকেল ৩টায় সরকারের সঙ্গে বৈঠকের পর চা-শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নিপেন পাল এ ঘোষণা দেন।
নিপেন পাল বলেন, চা-শ্রমিকদের মজুরি ১২০ টাকা থেকে ২৫ টাকা বাড়িয়ে ১৪৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্বাসে সরকারের এই প্রস্তাব শ্রমিকেরা মেনে নিয়েছে।
বিকেলে জেলার শ্রীমঙ্গল শ্রম দপ্তরে চা-শ্রমিকদের মজুরি নিয়ে এক বৈঠক বসে। বৈঠক শেষে চা-শ্রমিকরা ১৪৫ টাকা মজুরির প্রস্তাব মেনে নেয় ও ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয়। কাল থেকে কাজে যোগ দেবে শ্রমিকরা।
সভায় স্থানীয় সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ, বাংলাদেশ শ্রম অধিদপ্তরে মহাপরিচালক খালেদ মামুন চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া, চা-শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নিপেন পাল, সাংগঠনিক সম্পাদক বিজয় হাজরাসহ অন্যান্যরা।
গত ৯ আগস্ট থেকে চা-শ্রমিকরা ৩০০ টাকা মজুরির দাবিতে সারা দেশের চা বাগানে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু করে।