১০:১৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গুম হওয়া ব্যক্তিদের ফিরে পেতে স্বজনদের আকুতি

  • Reporter Name
  • Update Time : ০২:৫১:৩২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ অগাস্ট ২০২২
  • 27

এ বুক ফাঁটা কান্নার জলে আছে প্রিয়জনকে খুঁজে পাওয়ার আকুতি। কেউ হারিয়েছেন সন্তান, কেউ বাবা কিংবা স্বামী। কোথায় আছেন তারা? সন্ধান মিলবে কি নিখোঁজ স্বজনের?

এমন প্রশ্ন নিয়ে শনিবার (২০ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করে ‘মায়ের ডাক’ নামে একটি সংগঠন। গত এক দশকে নিখোঁজ হওয়া স্বজনদের ফিরিয়ে দেয়ার দাবি নিয়ে সবাই এক হয়েছিলেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে।মানববন্ধনে মিরপুরের এক ভুক্তভোগী স্মৃতি বলেন, তিনি নিজেই জানেন না, তিনি বিধবা নাকি বেঁচে আছেন তার স্বামী।

এ সময় অজানা বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে নিজেদের অভিজ্ঞতার কথাও জানান কেউ কেউ। তারা বলেন, আমার নিজের ক্ষেত্রে কি হয়েছে তাতো আমি নিজের ক্ষেত্রে দেখেছি, এছাড়া প্রত্যেকের সঙ্গে কি হয়েছে তা সবাই ভাল করে জানেন।

এতে সংহতি জানিয়ে বক্তারা অভিযোগ করেন, বিরোধী মতকে দমন ও মানুষকে ভয় দেখাতে একের পর এক গুমের ঘটনা ঘটলেও তার বিচার চাইতে পারছে না পরিবার।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুল বলেন, গুমের ভিকটিম যারা বিদেশে চলে যেতে পেরেছেন বা সাহস করে কথা বলতে পেরেছেন, তাদের ফিরে আসার গল্প শুনে আমরা অবাক হই না, বরং শিউরে ওঠি।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাষ্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, এখানে আসা সবার ছেলে, মে, ভাই-বোন বা স্বামীকে ফেরত দেন।

মানববন্ধন থেকে অবিলম্বে গুম হওয়া ব্যক্তিদের মুক্তি না দিলে শিগগিরই বড় কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেয়া হয়।

Tag :
About Author Information

দেশের ৮৭ উপজেলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে

গুম হওয়া ব্যক্তিদের ফিরে পেতে স্বজনদের আকুতি

Update Time : ০২:৫১:৩২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ অগাস্ট ২০২২

এ বুক ফাঁটা কান্নার জলে আছে প্রিয়জনকে খুঁজে পাওয়ার আকুতি। কেউ হারিয়েছেন সন্তান, কেউ বাবা কিংবা স্বামী। কোথায় আছেন তারা? সন্ধান মিলবে কি নিখোঁজ স্বজনের?

এমন প্রশ্ন নিয়ে শনিবার (২০ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করে ‘মায়ের ডাক’ নামে একটি সংগঠন। গত এক দশকে নিখোঁজ হওয়া স্বজনদের ফিরিয়ে দেয়ার দাবি নিয়ে সবাই এক হয়েছিলেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে।মানববন্ধনে মিরপুরের এক ভুক্তভোগী স্মৃতি বলেন, তিনি নিজেই জানেন না, তিনি বিধবা নাকি বেঁচে আছেন তার স্বামী।

এ সময় অজানা বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে নিজেদের অভিজ্ঞতার কথাও জানান কেউ কেউ। তারা বলেন, আমার নিজের ক্ষেত্রে কি হয়েছে তাতো আমি নিজের ক্ষেত্রে দেখেছি, এছাড়া প্রত্যেকের সঙ্গে কি হয়েছে তা সবাই ভাল করে জানেন।

এতে সংহতি জানিয়ে বক্তারা অভিযোগ করেন, বিরোধী মতকে দমন ও মানুষকে ভয় দেখাতে একের পর এক গুমের ঘটনা ঘটলেও তার বিচার চাইতে পারছে না পরিবার।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুল বলেন, গুমের ভিকটিম যারা বিদেশে চলে যেতে পেরেছেন বা সাহস করে কথা বলতে পেরেছেন, তাদের ফিরে আসার গল্প শুনে আমরা অবাক হই না, বরং শিউরে ওঠি।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাষ্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, এখানে আসা সবার ছেলে, মে, ভাই-বোন বা স্বামীকে ফেরত দেন।

মানববন্ধন থেকে অবিলম্বে গুম হওয়া ব্যক্তিদের মুক্তি না দিলে শিগগিরই বড় কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেয়া হয়।