০৭:৫২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কেরানীগঞ্জে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের ৫ জন দগ্ধ।

  • Reporter Name
  • Update Time : ১০:১১:৪৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ জুলাই ২০২১
  • 31

ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের দুই শিশুসহ ৫ জন দগ্ধ হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধরা হলেন- রাজু আহমেদ (২৮), তার দুই মেয়ে জান্নাত (৫) ও রোজা (৩), রাজুর বোন শারমিন আক্তার (২৪) এবং শারমিনের চাচাতো ভাই হাবিবুর রহমান হাবিব (১৯)।

দগ্ধ অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে রাতেই শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে নিয়ে এসে ভর্তি করা হয়েছে। দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের ভাগৈইর এলাকার একটি বাসায় গ্যাস সিলিন্ডারের লিকেজ থেকে ওই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

হাসপাতালে নিয়ে আসা হাবিবের বাবা মোতালেব জানান, রাতে রাজু খাবার গরম করতে গেলে গ্যাস সিলিন্ডারের লিকেজ থেকে আগুন ছড়িয়ে পড়লে এটি বিস্ফোরিত হয়ে তারা দগ্ধ হন।

বার্ন ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শংকর পাল জানান, রাজু আহমেদ ৩০ শতাংশ, জান্নাত ২৬ শতাংশ, রোজা ৪৬ শতাংশ, শারমিন আক্তার ১০ শতাংশ ও হাবিবুর রহমান হাবিবের শরীর ৩০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। দগ্ধ সবারই অবস্থাই আশঙ্কাজনক বলে চিকিৎকরা জানিয়েছেন।

অগ্নিদগ্ধ রাজু কেরানীগঞ্জের ভাগৈইর এলাকার বাসিন্দা মালয়েশিয়া প্রবাসী সিরাজুল ইসলামের ছেলে। রাজু ও হাবিব দুই জনই একটি গ্যাস কোম্পানিতে সিলিন্ডার সেলসম্যানের চাকরি করেন বলে জানা গেছে।

Tag :
About Author Information

একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

কেরানীগঞ্জে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের ৫ জন দগ্ধ।

Update Time : ১০:১১:৪৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ জুলাই ২০২১

ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একই পরিবারের দুই শিশুসহ ৫ জন দগ্ধ হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধরা হলেন- রাজু আহমেদ (২৮), তার দুই মেয়ে জান্নাত (৫) ও রোজা (৩), রাজুর বোন শারমিন আক্তার (২৪) এবং শারমিনের চাচাতো ভাই হাবিবুর রহমান হাবিব (১৯)।

দগ্ধ অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে রাতেই শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে নিয়ে এসে ভর্তি করা হয়েছে। দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের ভাগৈইর এলাকার একটি বাসায় গ্যাস সিলিন্ডারের লিকেজ থেকে ওই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

হাসপাতালে নিয়ে আসা হাবিবের বাবা মোতালেব জানান, রাতে রাজু খাবার গরম করতে গেলে গ্যাস সিলিন্ডারের লিকেজ থেকে আগুন ছড়িয়ে পড়লে এটি বিস্ফোরিত হয়ে তারা দগ্ধ হন।

বার্ন ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শংকর পাল জানান, রাজু আহমেদ ৩০ শতাংশ, জান্নাত ২৬ শতাংশ, রোজা ৪৬ শতাংশ, শারমিন আক্তার ১০ শতাংশ ও হাবিবুর রহমান হাবিবের শরীর ৩০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। দগ্ধ সবারই অবস্থাই আশঙ্কাজনক বলে চিকিৎকরা জানিয়েছেন।

অগ্নিদগ্ধ রাজু কেরানীগঞ্জের ভাগৈইর এলাকার বাসিন্দা মালয়েশিয়া প্রবাসী সিরাজুল ইসলামের ছেলে। রাজু ও হাবিব দুই জনই একটি গ্যাস কোম্পানিতে সিলিন্ডার সেলসম্যানের চাকরি করেন বলে জানা গেছে।