কু‌য়ে‌তে সা‌বেক এম‌পি পাপলুর সাত বছরের কারাদণ্ড।

নিজস্ব প্রতিবেদকনিজস্ব প্রতিবেদক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  05:48 AM, 29 November 2021

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েতে মানব পাচারের মামলায় বাংলাদেশের সাবেক এমপি শহিদ ইসলাম পাপুলকে সাত বছরের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছে দেশটির উচ্চ আদালত। সেইসঙ্গে ২৭ লাখ কুয়েতি দিনার জরিমানাও করা হয়েছে তাকে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাতে এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে গালফ নিউজ।

প্রতিবেদনে বলা হয়, একটি হাই প্রোফাইল মানব পাচারের মামলায় পাপুলকে সাজা দিয়েছে কুয়েতের শীর্ষ আপিল আদালত। একইসঙ্গে পাপুলের কাজে সহযোগিতা করায় কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাবেক কর্মকর্তা মাজেন আল জাররাহ, জনশক্তি পরিচালক হাসান আল খিদরকেও সাত বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

দোষী সাব্যস্ত কুয়েতের ওই সরকারি কর্মকর্তাদেরকে ঘুষের মামলায় নিজ নিজ পদ থেকে বহিষ্কারেরও নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও দেশটির সাবেক এমপি সালাহ খুরশিদকেও সাত বছরের কারাদণ্ড এবং প্রায় সাড়ে সাত লাখ কুয়েতি দিনার জরিমানা করা হয়েছে।

এর আগে গত ফেব্রুয়ারিতে অর্থ ও ঘুষের মামলায় পাপুলকে চার বছরের কারাদণ্ড দেয় কুয়েতের আদালত। ওই সময় তাকে ১৯ লাখ কুয়েতি দিনার জরিমানাও করা হয়।

দেশটির একটি কোম্পানির মাধ্যমে অবৈধভাবে বাংলাদেশি শ্রমিকদের কুয়েতে পাঠানোর অভিযোগ ছিল পাপুলের বিরুদ্ধে। তাদের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থও হাতিয়ে নেয়ারও অভিযোগ আছে তাঁর বিরুদ্ধে।

গত বছরের ৬ জুন রাতে কুয়েতের মুশরিফ এলাকা থেকে লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সাবেক এই সংসদ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। পাচারের শিকার বাংলাদেশিদের অভিযোগের ভিত্তিতে পাপুলের বিরুদ্ধে মানবপাচার, অর্থপাচারের অভিযোগ আনা হয়।

জানা যায়, সাধারণ শ্রমিক হিসেবে কুয়েতে গিয়ে বিশাল সাম্রাজ্য গড়া পাপুল ২০১৮ সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। কুয়েতে মূলত পরিচ্ছন্নতাকর্মী নেয়ার কাজ করলেও সেখানে অন্যান্য ব্যবসার কাজও করে তার মালিকানাধীন কোম্পানি মারাফি কুয়েতিয়া।