কুসিক নির্বাচন ঘিরে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

নিজস্ব প্রতিবেদকনিজস্ব প্রতিবেদক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  11:50 PM, 14 June 2022
নির্বাচন ঘিরে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

রাত পোহালেই কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের (কুসিক) তৃতীয় মেয়াদের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। বুধবারের (১৫ জুন) এই নির্বাচনে পর্যাপ্ত নিরাপত্তার জন্য রাখা হয়েছে বিপুল পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের। তবে শঙ্কা কাটেনি স্বতন্ত্র প্রার্থীদের। যদিও সরকার দলীয় প্রার্থীর দাবি, তাদের দ্বারা বিঘ্ন হবে না আইনশৃঙ্খলা।

আগামীকালের ভোটযজ্ঞে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত সকালের দিকে ভিক্টোরিয়া কলেজ রোডের ভিক্টোরিয়া কলেজিয়েট স্কুলে ভোট দেবেন। সকালের দিকেই স্বতন্ত্র প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ কেন্দ্রে ভোট দেবেন।

এদিকে নির্বাচন ঘিরে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কুর শঙ্কা, নির্বাচনে ভোটারদের কেন্দ্রে যেতে বাধা দিতে পারে প্রতিপক্ষের লোকজন। নির্বাচন সুষ্ঠু করার লক্ষ্যে কঠোর আইন প্রয়োগের দাবি তার।নৌকার প্রার্থী রিফাতকে মূল প্রতিদ্বন্দ্বী না বলে এমপি বাহারকে নিজের প্রতিদ্বন্দ্বী বলে দাবি করেন। সাক্কু দাবি করেন, রিফাত ( নৌকার প্রার্থী) এমপি বাহারের নমিনি। তিনি সর্বশক্তি দিয়ে আমাকে ঠেকানোর চেষ্টা করেছেন। আমিও জানি, তার শক্তি কতটুকু। সব বাধা ডিঙিয়ে ভোটাররা আমাকেই বিজয়ী করবে।

আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী নিজাম উদ্দিন একই আশঙ্কা করে বলেন, সরকার দলীয়রা ভোট লুটের পরিকল্পনা করছে। তবে, এমন আশঙ্কা নেই বলে দাবি করে নৌকার প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত। বলেন, তারাও কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে না।এদিকে এদিন বেলা ১১টার সময় রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর প্রথমবারের মতো নির্বাচনের সময় বহিরাগত সন্ত্রাসীদের আগমন ও বর্তমানে কুমিল্লায় হত্যা মামলার আসামিরা ঘোরাঘুরি করছেন বলে অভিযোগ দায়ের করেন ঘোড়া প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সার। এছাড়া ইভিএমের ফলাফল বিবরণী প্রিন্ট আকারে দেওয়ার প্রস্তাব করেন কায়সার। তিনি জানান, ইভিএম নিয়ে জনমনে শঙ্কার পরও ইসির আশ্বাসে আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি। প্রতি কেন্দ্রের চূড়ান্ত ফলাফলের লিখিত ফলাফলের লিখিত বিবরণীর সাথে মাস্টার ইভিএমের প্রিন্ট কপি সংযুক্ত আকারে প্রার্থীর পোলিং এজেন্টকে দেওয়ার অনুরোধ জানাই

তবে, স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, সোমবার রাত ১২টার পর থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত নির্বাচনি এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচল করতে পারবে না। তবে এ সময়ে জরুরি সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি ও সাংবাদিকরা মোটরসাইকেল চালানোর অনুমতি পাবেন।

এ ভোটের লড়াইয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৩ হাজার ৬০৮ জন সদস্য নিয়োজিত থাকবেন। ২৭টি মোবাইল টিম, ১২ প্লাটুন বিজিবি, ২৭টি র‍্যাবের টিম, ৩৯ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং ৯ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নির্বাচনী মাঠে থাকছেন। এছাড়া ২টি রিজার্ভ টিম থাকবে।

সিলেট, চট্রগ্রাম, ফেনী, বান্দরবান ও মৌলভীবাজার থেকে কুমিল্লায় আনা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

এবার কুসিকের ২৭টি ওয়ার্ডের ১০৫টি কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট নেয়া হবে। এই সিটি করপোরেশনে মোট ভোটার দুই লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন। এরমধ্যে নারী ভোটার এক লাখ ১৭ হাজার ৯২, পুরুষ ভোটার এক লাখ ১২ হাজার ৮২৬।