০২:১২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

উন্নয়নের এত যে ঢাকঢোল সারা দেশে কেন লোডশেডিংয়ে দুর্বিষহ পরিস্থিতি।রিজভী

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৩:১৬:৫১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ জুলাই ২০২২
  • 43

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সারা দেশে উন্নয়নের এত যে ঢাকঢোল বাজানো হলো, তা হলে সারা দেশে কেন লোডশেডিংয়ে দুর্বিষহ পরিস্থিতি। লোডশেডিংয়ের ভয়াবহ ছোবলে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলসহ রাজধানী শহরও বিপন্ন হয়ে পড়েছে’ বলে মন্তব্য করেন রিজভী।

আজ মঙ্গলবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘বিদ্যুৎ নিয়ে নানা রংচংয়ের কথা বলা হয়েছে। জনগণের হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যয় করে ১৫২টি বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। যার বেশির ভাগই এখন অচল হয়ে পড়ে আছে। এখন লোডশেডিংয়ের ভয়াবহ ছোবলে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলসহ রাজধানী শহরও বিপন্ন হয়ে পড়েছে। অথচ, বেসরকারি খাতে বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র কুইক রেন্টাল স্থাপন করতে ভর্তুকি দিতে হয়েছে জনগণের হাজার হাজার কোটি টাকা। এই টাকা কীভাবে খরচ হচ্ছে, সেটি নিয়ে কেউ যাতে প্রশ্ন তুলতে না পারে, সে জন্য দায়মুক্তির আইন করা হয়েছে।’

রিজভী অভিযোগ করে বলেন, ‘বিদ্যুতের সীমাহীন ব্যর্থতার মূল কারণ—ক্ষমতাসীন গোষ্ঠীর আত্মীয়স্বজনের বেপরোয়া লুণ্ঠন। এরা স্বদেশ ও স্বসমাজকে এড়িয়ে আত্মীয় তোষণ করতে গিয়েই বেসরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের অনুমতি দিয়ে জনগণকে শোষণ করার পথ উন্মুক্ত করেছে। যে কারণে বিদ্যুতের বিল এখন অস্বাভাবিক, দেশ অন্ধকারে নিমজ্জিত।’

‘পদ্মা সেতুর জাঁকজমক উদ্বোধনে শুধুমাত্র শত শত টয়লেট নির্মাণ করতেই শত শত কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে’ উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘প্রবল বন্যায় বানভাসী মানুষের জন্য জনপ্রতি মাত্র ১৮ টাকা ও দেড় কেজি চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এ যেন কর্মহীন অর্ধাহার-অনাহারি মানুষের প্রতি নির্মম পরিহাস।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Tag :
About Author Information

দেশের ৮৭ উপজেলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে

উন্নয়নের এত যে ঢাকঢোল সারা দেশে কেন লোডশেডিংয়ে দুর্বিষহ পরিস্থিতি।রিজভী

Update Time : ০৩:১৬:৫১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ জুলাই ২০২২

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সারা দেশে উন্নয়নের এত যে ঢাকঢোল বাজানো হলো, তা হলে সারা দেশে কেন লোডশেডিংয়ে দুর্বিষহ পরিস্থিতি। লোডশেডিংয়ের ভয়াবহ ছোবলে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলসহ রাজধানী শহরও বিপন্ন হয়ে পড়েছে’ বলে মন্তব্য করেন রিজভী।

আজ মঙ্গলবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘বিদ্যুৎ নিয়ে নানা রংচংয়ের কথা বলা হয়েছে। জনগণের হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যয় করে ১৫২টি বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। যার বেশির ভাগই এখন অচল হয়ে পড়ে আছে। এখন লোডশেডিংয়ের ভয়াবহ ছোবলে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলসহ রাজধানী শহরও বিপন্ন হয়ে পড়েছে। অথচ, বেসরকারি খাতে বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র কুইক রেন্টাল স্থাপন করতে ভর্তুকি দিতে হয়েছে জনগণের হাজার হাজার কোটি টাকা। এই টাকা কীভাবে খরচ হচ্ছে, সেটি নিয়ে কেউ যাতে প্রশ্ন তুলতে না পারে, সে জন্য দায়মুক্তির আইন করা হয়েছে।’

রিজভী অভিযোগ করে বলেন, ‘বিদ্যুতের সীমাহীন ব্যর্থতার মূল কারণ—ক্ষমতাসীন গোষ্ঠীর আত্মীয়স্বজনের বেপরোয়া লুণ্ঠন। এরা স্বদেশ ও স্বসমাজকে এড়িয়ে আত্মীয় তোষণ করতে গিয়েই বেসরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের অনুমতি দিয়ে জনগণকে শোষণ করার পথ উন্মুক্ত করেছে। যে কারণে বিদ্যুতের বিল এখন অস্বাভাবিক, দেশ অন্ধকারে নিমজ্জিত।’

‘পদ্মা সেতুর জাঁকজমক উদ্বোধনে শুধুমাত্র শত শত টয়লেট নির্মাণ করতেই শত শত কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে’ উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘প্রবল বন্যায় বানভাসী মানুষের জন্য জনপ্রতি মাত্র ১৮ টাকা ও দেড় কেজি চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এ যেন কর্মহীন অর্ধাহার-অনাহারি মানুষের প্রতি নির্মম পরিহাস।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।