০৪:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইউরো কাপ ম্যাচ দেখ‌তে এসে ২ হাজার ক‌রোনায় আক্রান্ত।

  • Reporter Name
  • Update Time : ১১:১৯:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ জুলাই ২০২১
  • 17

ইউরো কাপের ফুটবল ম্যাচ দেখার সঙ্গে স্কটল্যান্ডে প্রায় দুই হাজার কোভিড কেসের সম্পর্ক রয়েছে। স্কটোল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য অধিদফতর (পিএইচএস) দাবি করছে, এই দুই হাজার কোভিড কেসের মধ্যে দুই-তৃতীয়াংশ লন্ডনে ইংল্যান্ড বনাম স্কটল্যান্ডের ম্যাচ দেখতে গিয়েছিলেন। এরমধ্যে ৩৯৭ জন ফুটবল ভক্ত ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে গিয়েছিলেন।

পিএইচএস-এর একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, ফুটবল ম্যাচের সঙ্গে ১ হাজার ৯৯১ কোভিড কেসের সম্পর্ক রয়েছে। এরমধ্যে ৫৫টি কোভিড কেস গ্লাসগোর ফ্যানজোনের সঙ্গে জড়িত। তাছাড়া হাম্পডেন পার্কের স্কটল্যান্ড বনাম ক্রোয়েশিয়া ম্যাচের সঙ্গে ৩৮টি এবং স্কটল্যান্ড বনাম চেক রিপাবলিকের ম্যাচের সঙ্গে ৩৭টি কেসের সম্পর্ক খুঁজে পাওয়া যায়। এছাড়াও পাব কিংবা হাউজ পার্টিতে খেলা দেখতে যাওয়ার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত কেসগুলোও এই হিসাবে আনা হয়।

আক্রান্তদের তিন-চতুর্থাংশই অর্থাৎ ১৪৭০ জনই ২০ থেকে ৩৯ বছর বয়সী। আর এই সংখ্যার প্রতি ১০ জনের ৯ জনই পুরুষ।

পিএইচএসের ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে, চলমান ইউরোতে সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা নিশ্চিত করতে কাজ করছে সংস্থাটি।

কোভিড বিধি-নিষেধের কারণে ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে মাত্র ২ হাজার ৬০০ টিকিট বরাদ্দ ছিল। অথচ এরমধ্যেও প্রায় দুই হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

তবে এসব ম্যাচ দেখতে কয়েক হাজার ভক্ত ও সমর্থক টিকিট পাবেন না জেনেও লন্ডনে সফর করেছেন। আর এটাই চরম বিপদ ডেকে এনেছে। ম্যাচের আগে সমর্থকরা বড় বড় দলে কেন্দ্রীয় লন্ডনে জড়ো হয়েছেন।

এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আক্রান্ত ১ হাজার ৯৯১ জনের মধ্যে ১ হাজার ২৯৪ জনই লন্ডনে সফর করেছেন।

গত ১১ জুন ইউরো ২০২০ ফুটবল প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত স্কটল্যান্ডে ৩২ হাজারের বেশি মানুষের দেহে করোনার উপস্থিতি ধরা পড়েছে, যা বেশ উদ্বেগজনক।

Tag :
About Author Information

জনপ্রিয় সংবাদ

একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

ইউরো কাপ ম্যাচ দেখ‌তে এসে ২ হাজার ক‌রোনায় আক্রান্ত।

Update Time : ১১:১৯:৩০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ জুলাই ২০২১

ইউরো কাপের ফুটবল ম্যাচ দেখার সঙ্গে স্কটল্যান্ডে প্রায় দুই হাজার কোভিড কেসের সম্পর্ক রয়েছে। স্কটোল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য অধিদফতর (পিএইচএস) দাবি করছে, এই দুই হাজার কোভিড কেসের মধ্যে দুই-তৃতীয়াংশ লন্ডনে ইংল্যান্ড বনাম স্কটল্যান্ডের ম্যাচ দেখতে গিয়েছিলেন। এরমধ্যে ৩৯৭ জন ফুটবল ভক্ত ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে গিয়েছিলেন।

পিএইচএস-এর একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, ফুটবল ম্যাচের সঙ্গে ১ হাজার ৯৯১ কোভিড কেসের সম্পর্ক রয়েছে। এরমধ্যে ৫৫টি কোভিড কেস গ্লাসগোর ফ্যানজোনের সঙ্গে জড়িত। তাছাড়া হাম্পডেন পার্কের স্কটল্যান্ড বনাম ক্রোয়েশিয়া ম্যাচের সঙ্গে ৩৮টি এবং স্কটল্যান্ড বনাম চেক রিপাবলিকের ম্যাচের সঙ্গে ৩৭টি কেসের সম্পর্ক খুঁজে পাওয়া যায়। এছাড়াও পাব কিংবা হাউজ পার্টিতে খেলা দেখতে যাওয়ার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত কেসগুলোও এই হিসাবে আনা হয়।

আক্রান্তদের তিন-চতুর্থাংশই অর্থাৎ ১৪৭০ জনই ২০ থেকে ৩৯ বছর বয়সী। আর এই সংখ্যার প্রতি ১০ জনের ৯ জনই পুরুষ।

পিএইচএসের ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে, চলমান ইউরোতে সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা নিশ্চিত করতে কাজ করছে সংস্থাটি।

কোভিড বিধি-নিষেধের কারণে ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে মাত্র ২ হাজার ৬০০ টিকিট বরাদ্দ ছিল। অথচ এরমধ্যেও প্রায় দুই হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

তবে এসব ম্যাচ দেখতে কয়েক হাজার ভক্ত ও সমর্থক টিকিট পাবেন না জেনেও লন্ডনে সফর করেছেন। আর এটাই চরম বিপদ ডেকে এনেছে। ম্যাচের আগে সমর্থকরা বড় বড় দলে কেন্দ্রীয় লন্ডনে জড়ো হয়েছেন।

এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আক্রান্ত ১ হাজার ৯৯১ জনের মধ্যে ১ হাজার ২৯৪ জনই লন্ডনে সফর করেছেন।

গত ১১ জুন ইউরো ২০২০ ফুটবল প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত স্কটল্যান্ডে ৩২ হাজারের বেশি মানুষের দেহে করোনার উপস্থিতি ধরা পড়েছে, যা বেশ উদ্বেগজনক।