০৩:৫৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আফগানিস্তানে বন্ধের পথে শতাধিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র : ডব্লিউএইচও।

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৩:১৭:০৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • 35

আফগানিস্তানের শতাধিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র বন্ধের ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। দুই দশক পর দেশটিতে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করা তালেবান সরকারের সঙ্গে বিভিন্ন বিদেশি সংস্থার যোগাযোগ স্থগিত হয়ে যাওয়ায় এসব স্বাস্থ্যকেন্দ্র বন্ধের শঙ্কা তৈরি হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ব  স্বাস্থ্য সংস্থার একজন কর্মকর্তা।

জাতিসংঘের এই সংস্থার আঞ্চলিক পরিচালক রিক ব্রেনান জানিয়েছেন, আফগানিস্তানের ২৩০০ স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ৯০ শতাংশই এ সপ্তাহের মধ্যে বন্ধ হতে পারে।

এরই মধ্যে বিভিন্ন বিদেশি সংস্থা দেশটিতে অর্থ দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে।

রিক ব্রেনান আরো জানান, পশ্চিমা দাতা সংস্থাগুলোর এমন নিয়ম ও বিধিনিষেধ রয়েছে যা আফগানিস্তানে তালেবান সরকারের সাথে সম্পর্ক স্থাপনের অন্তরায়। ফলে তাদের স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোর একটি বড় অংশের কার্যক্রমে বিরতি দিতে হচ্ছে। এর ফলে দেশটিতে অসুস্থতা ও মৃত্যুর হার বাড়ার শঙ্কা রয়েছে।

তবে ডব্লিউএইচও এই সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। ৫০০ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহ এবং অর্থায়নের মাধ্যমে শূন্যস্থান পূরণ করার চেষ্টা করছে। কাতারের মাধ্যমে এই সহায়তা পাঠানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

‘আশা করছি আগামী সপ্তাহে দুই থেকে তিনটি বিমানে করে এসব সরঞ্জাম কাবুলে পৌঁছাবে,’ বলেন ব্রেনান।

আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় শহর মাজার-ই-শরীফ হয়েও চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহ করা হচ্ছে। এছাড়া পাকিস্তান থেকে ট্রাকে করেও বিভিন্ন সরঞ্জাম পৌঁছানোর চেষ্টা করছে ডব্লিউএইচও।
সূত্র : রয়টার্স

Tag :
About Author Information

দেশের ৮৭ উপজেলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে

আফগানিস্তানে বন্ধের পথে শতাধিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র : ডব্লিউএইচও।

Update Time : ০৩:১৭:০৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

আফগানিস্তানের শতাধিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র বন্ধের ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। দুই দশক পর দেশটিতে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করা তালেবান সরকারের সঙ্গে বিভিন্ন বিদেশি সংস্থার যোগাযোগ স্থগিত হয়ে যাওয়ায় এসব স্বাস্থ্যকেন্দ্র বন্ধের শঙ্কা তৈরি হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ব  স্বাস্থ্য সংস্থার একজন কর্মকর্তা।

জাতিসংঘের এই সংস্থার আঞ্চলিক পরিচালক রিক ব্রেনান জানিয়েছেন, আফগানিস্তানের ২৩০০ স্বাস্থ্যকেন্দ্রের ৯০ শতাংশই এ সপ্তাহের মধ্যে বন্ধ হতে পারে।

এরই মধ্যে বিভিন্ন বিদেশি সংস্থা দেশটিতে অর্থ দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে।

রিক ব্রেনান আরো জানান, পশ্চিমা দাতা সংস্থাগুলোর এমন নিয়ম ও বিধিনিষেধ রয়েছে যা আফগানিস্তানে তালেবান সরকারের সাথে সম্পর্ক স্থাপনের অন্তরায়। ফলে তাদের স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোর একটি বড় অংশের কার্যক্রমে বিরতি দিতে হচ্ছে। এর ফলে দেশটিতে অসুস্থতা ও মৃত্যুর হার বাড়ার শঙ্কা রয়েছে।

তবে ডব্লিউএইচও এই সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। ৫০০ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহ এবং অর্থায়নের মাধ্যমে শূন্যস্থান পূরণ করার চেষ্টা করছে। কাতারের মাধ্যমে এই সহায়তা পাঠানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

‘আশা করছি আগামী সপ্তাহে দুই থেকে তিনটি বিমানে করে এসব সরঞ্জাম কাবুলে পৌঁছাবে,’ বলেন ব্রেনান।

আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় শহর মাজার-ই-শরীফ হয়েও চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহ করা হচ্ছে। এছাড়া পাকিস্তান থেকে ট্রাকে করেও বিভিন্ন সরঞ্জাম পৌঁছানোর চেষ্টা করছে ডব্লিউএইচও।
সূত্র : রয়টার্স