০৮:১৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আজ শেষ হচ্ছে সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়নপত্র দাখিলের সময়সীমা।

আজ শেষ হচ্ছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়নপত্র দাখিলের সময়সীমা। আজ রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) বিকাল ৪টা পর্যন্ত রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র দাখিল করা যাবে।

সংখ্যানুপাতিক পদ্ধতিতে সংরক্ষিত ৫০ নারী আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ ৩৮টি, জাপা দুইটি ও স্বতন্ত্ররা ১০টি আসন পায়। কিন্তু স্বতন্ত্র ৬২ প্রার্থী আওয়ামী লীগকে সমর্থন দেয়ায় আওয়ামী লীগই পাচ্ছে ৪৮টি আসন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম বলেন, ৫০টি সংরক্ষিত আসনের মধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ৪৮টি আসন পাবে। আর জাতীয় পার্টি পাবে দুটি আসন।

তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে ১৯ ও ২০ ফেব্রুয়ারি। যাচাই-বাছাইয়ে অবৈধ ঘোষিত হলে আপিল করা যাবে ২২ ফেব্রুয়ারি। ২৪ ফেব্রুয়ারি আপিল নিষ্পত্তি করা হবে। ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা যাবে।

২৭ ফেব্রুয়ারি প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে। আর নির্বাচন হবে ১৪ মার্চ। কেউ প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করলে এই সময়ের পরই ঘোষণা হবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতদের নাম।

ইসির নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার দেয়া তথ্যমতে, ইতোমধ্যে প্রস্তুত করা হয়েছে ভোটার তালিকা। কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকলে ভোটাভুটির কোনো প্রয়োজন হবে না।

এদিকে, এরইমধ্যে দলগুলো তাদের প্রার্থীদের তালিকা ঘোষণা করেছে। ফলে, ভোট হবার তেমন কোনো সম্ভাবনা নেই।

Tag :
About Author Information

জনপ্রিয় সংবাদ

একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

আজ শেষ হচ্ছে সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়নপত্র দাখিলের সময়সীমা।

Update Time : ১১:৩৯:৫১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

আজ শেষ হচ্ছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়নপত্র দাখিলের সময়সীমা। আজ রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) বিকাল ৪টা পর্যন্ত রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র দাখিল করা যাবে।

সংখ্যানুপাতিক পদ্ধতিতে সংরক্ষিত ৫০ নারী আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ ৩৮টি, জাপা দুইটি ও স্বতন্ত্ররা ১০টি আসন পায়। কিন্তু স্বতন্ত্র ৬২ প্রার্থী আওয়ামী লীগকে সমর্থন দেয়ায় আওয়ামী লীগই পাচ্ছে ৪৮টি আসন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম বলেন, ৫০টি সংরক্ষিত আসনের মধ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ৪৮টি আসন পাবে। আর জাতীয় পার্টি পাবে দুটি আসন।

তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে ১৯ ও ২০ ফেব্রুয়ারি। যাচাই-বাছাইয়ে অবৈধ ঘোষিত হলে আপিল করা যাবে ২২ ফেব্রুয়ারি। ২৪ ফেব্রুয়ারি আপিল নিষ্পত্তি করা হবে। ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা যাবে।

২৭ ফেব্রুয়ারি প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে। আর নির্বাচন হবে ১৪ মার্চ। কেউ প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করলে এই সময়ের পরই ঘোষণা হবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতদের নাম।

ইসির নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার দেয়া তথ্যমতে, ইতোমধ্যে প্রস্তুত করা হয়েছে ভোটার তালিকা। কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকলে ভোটাভুটির কোনো প্রয়োজন হবে না।

এদিকে, এরইমধ্যে দলগুলো তাদের প্রার্থীদের তালিকা ঘোষণা করেছে। ফলে, ভোট হবার তেমন কোনো সম্ভাবনা নেই।